সুপার কম্পিউটার তৈরি করে শীর্ষস্থান দখল করতে চায় ফুজিত্সু
৪ জুলাই, ২০১২ ৪:৪৫ অপরাহ্ণ

বিশ্বের জনপ্রিয় কম্পিউটার নির্মাতা প্রতিষ্ঠান ফুজিত্সু নতুন সুপার কম্পিউটার তৈরির ঘোষণা দিয়েছে। প্রতিষ্ঠানটির সর্বশেষ তৈরি করা সুপার কম্পিউটার ‘কে’-এর উত্তরসূরি তৈরিতে সাহায্য করবে জাপানের সরকারি গবেষণা প্রতিষ্ঠান রিকেন। এর মাধ্যমে সবচেয়ে দ্রুতগতির সুপার কম্পিউটার তৈরির মর্যাদা আবার দখল করতে চাইছে ফুজিত্সু।

দীর্ঘ কয়েক বছর ধরে বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগতির সুপার কম্পিউটার তৈরির মর্যাদা ছিল একমাএ ফুজিত্সুর। সম্প্রতি আইবিএমের তৈরি সিকোয়া সুপার কম্পিউটার ফুজিত্সুর ‘কে’ কম্পিউটারকে টপকে বিশ্বের সবচেয়ে দ্রুতগতির সুপার কম্পিউটারের মর্যাদা দখল করে। তবে শিগগিরই আবার শীর্ষস্থান দখল করতে আশাবাদী ফুজিত্সু।

প্রতিষ্ঠানটির প্রেসিডেন্ট মাসামি ইয়ামামোতো এক সম্মেলনে শেয়ারহোল্ডারদের বলেন, ‘কয়েক বছরের মধ্যেই সুপার কম্পিউটার তৈরিতে বিশ্বে আবার প্রথম স্থান দখলের বিষয়ে আমরা আশাবাদী।’
১৮ জুন ফুজিত্সুর ‘কে’ কম্পিউটারের চেয়ে দ্রুতগতির সুপার কম্পিউটার সিকোয়ার কথা সংবাদমাধ্যমে জানায় আইবিএম। ফুজিত্সুর নতুন সুপার কম্পিউটার কবে নাগাদ আসতে পারে সে ব্যাপারে জানাতে অস্বীকৃতি জানান মাসামি।

‘কে’ সুপার কম্পিউটারের গণনাগতি প্রতি সেকেন্ডে ১০ পেটাফ্লপ। ‘কে’ নামটি জাপানি শব্দ ‘কেই’ থেকে এসেছে, যার অর্থ ১০ থেকে ১৬। ১ পেটাফ্লপ ১০০০ লাখ কোটি কর্মদক্ষতার সমতুল্য। এর বিপরীতে আইবিএমের সুপার কম্পিউটার সিকোয়া প্রতি সেকেন্ডে ১৬ দশমিক ৩২ পেটাফ্লপ গতিসম্পন্ন কর্মদক্ষতা নিয়ে বিশ্বে এক নম্বরে অবস্থান করছে।
সূত্র: পিটিআই

পাঠকের মন্তব্য