ইমপ্রেস টেলিফিল্ম এর ছবি ‘হঠাৎ সেদিন’-এর ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার
৫ আগস্ট, ২০১২ ৭:০০ অপরাহ্ণ
-

‘হঠাৎ বৃষ্টি ’ খ্যাত কলকাতার নির্মাতা বাসু চ্যাটার্জি এই ঈদে দর্শকদের সামনে আসছেন নতুন ছবি নিয়ে। বাসু চ্যাটার্জি পরিচালিত নতুন ছবি ‘হঠাৎ সেদিন’ -এর ওয়ার্ল্ড প্রিমিয়ার অনুষ্ঠিত হবে চ্যানেল আইতে ঈদুল ফিতরের দিন বেলা ২টা ৩৫ মিনিটে। ঈদের দিন থেকেই ছবিটি প্রদর্শিত হবে স্টার সিনেপ্লেক্স ও বলাকাসহ বিভিন্ন সিনেমা হলে।

‘হঠাৎ সেদিন’ ছবিতে অভিনয় করেছেন- ফেরদৌস, রিদিমা ঘোষ, নিপুন, নবীন, প্রাণ রায়, সিমলা প্রমুখ। ইমপ্রেস টেলিফিল্ম প্রযোজিত এ ছবিটির কাহিনী চিত্রনাট্য, সংলাপ রচনা ও পরিচালনা করেছেন বাসু চ্যাটার্জী। সঙ্গীত পরিচালনায় রয়েয়েন ইমন সাহা।

‘হঠাৎ সেদিন’ ছবির কাহিনীধারায় দেখা যাবে, কলকাতায় বসবাসকারী সঞ্জয় ও দীপা পরস্পর ভালো বন্ধু। সঞ্জয় একটি বেসরকারী প্রতিষ্ঠানে চাকরি করে এবং দীপা পোষ্ট গ্রাজুয়েট করার জন্য থিসিস করছে। মাঝে মধ্যে তাদের দেখা হলে সঞ্জয় সব সময়ে একটি রজনীগন্ধার তোড়া দেয় দীপাকে। এর মধ্যে দীপা একদিন সঞ্জয়কে জানায় সে ঢাকায় একটি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে শিক্ষাকতা করার জন্য ইন্টারভিউ কার্ড পেয়েছে। দীপা অনুরোধ জানালো সঞ্জয়কে ঢাকায় আসবার। কারণ সে আগে কোনোদিন ঢাকায় আসেনি।

সঞ্জয় তার প্রস্তাবে রাজি না হয়ে তারই এক বন্ধু নবীনকে সহযোগিতা করার অনুরোধ জানায় দীপাকে। এতে রেগে যায় দীপা। যার ফলে দীপেক একাই আসতে হলো ঢাকা। আর তাকে রিসিপ করে সেই নবীন-ই। তবে তাকে সঞ্জয় পাঠায়নি, পাঠিয়েছে দীপার বান্ধবী ইরা এই আসস্ত করে নবীন। দীপা আশা করেছিল, ইরা ও তার স্বামী তাকে বেশ সহযোগিতা করবে। কিন্তু সেটি হয়নি। বরং নবীন-ই দীপাকে সার্বিক সহযোগিতা করে। ইন্টারভিউ দিয়ে দীপা ফিরে গেল কোলকাতায়। একদিন খবর পেল দীপার চাকরি হয়েছে। কিন্তু সঞ্জয়কে ছেড়ে আসতে দীপার খুবই কষ্ট হচ্ছিল। অন্যদিকে নবীনের প্রতিও কৃতজ্ঞতা বেড়ে যায় দীপার। কিন্তু দীপা আসলে কোন সিন্ধান্ত নিবে? সেটি দেখা যাবে ছবির শেষ অংশে।

পাঠকের মন্তব্য