যুক্তরাষ্ট্রের রাজনীতি ও প্রেসিডেন্ট নির্বাচন
২৪ অক্টোবর, ২০১২ ৫:৪৪ পূর্বাহ্ণvoa
President Barack Obama vs Republican presidential nominee Mitt Romney -

যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট নির্বাচনের প্রধান দু’ই প্রার্থী ডেমোক্র্যাট দলিয় প্রেসিডেন্ট ওবামা ও রেপাবলিকান দলের মিট রমনির মধ্যেকার টেলিভিসন বিতর্ক এখন ইতিহাসের পাতায় । দু’ই প্রার্থীই এখন বিতর্কের অঙ্গন ছেড়ে আবার তত্পর হয়েছেন প্রচারণার মঞ্চে – ভোটারদের দরবারে আবার গিয়ে হাজির হচ্ছেন দু’জনই – আবেদন জানাচ্ছেন ৬ নভেম্বরের নির্বাচনে ভোটের জন্যে ।


হোয়াইট হাউস জয়ের জন্যে দরকার ২ শ’ ৭০ ইলেকটোরাল ভোট – এবং এই ইলেকটোরাল ভোট যে যে রাজ্যে সবচেয়ে বেশি , সেখানেই এখন দু’ দলের দু’ই প্রার্থীর পদচারনা সবচেয়ে বেশি , স্বাভাবিক কারনেই । প্রেসিডেন্ট ওবামা ওহায়োর উদ্দেশে রওনার আগে ফ্লোরিডাতেই এখন সমাবেশে ভাষন দেবেন – তার পর ওহায়ো গিয়ে যোগ দেবেন নির্বাচনী জুটি ভাইস প্রেসিডেণ্ট জৌ বাইডেনের সঙ্গে – যোগ দেবেন নির্বাচনী প্রচারণায় । ওদিকে রমনি যাবেন নেভাডা আর কলোরাডোর উদ্দেশে – তাঁর নির্বাচনী জুটি কংগ্রেস বিধায়ক পল রায়ানের সঙ্গে একত্রে প্রচারণা চালাতে ।


এর আগে গতরাতের বিতর্কে ম্যাসাচুসেটসের সাবেক গভর্ণর পররাষ্ট্র নীতি বিষয়ে বিশেষ করে মধ্যপ্রাচ্য নিয়ে বারাক ওবামার সমালোচনায় বলেন – ওসামা বিন লাদেনের নিধন আর আল কায়েদা নেতৃত্বের পিছূ ধাওয়ার জন্যে তাঁকে আমি মোবারাকবাদ জানাচ্ছি ঠিকই – তবে কিনা ঐ ঘোলাটে পরিস্থিতি থেকে বের হবার পথ হারিয়ে ফেললে চলবে না । 


মি:ওবামা বলেন – মিত্র দেশগুলোর সঙ্গে মিলে যুক্তরাষ্ট্র অনেক কাজ করেছে ঐ অঞ্চলে শান্তি কায়েমের লক্ষে । এ প্রসঙ্গে তিনি নির্দিষ্টভাবে লিবিয়ার  নামোল্লেখ করেন , বলেন লিবিয়াবাসি মানুষ বেনগাযির সড়কে সড়কে এখনো ধ্বনী তোলে- এ্যামেরিকা আমাদের বন্ধূ আমরা এ্যামেরিকার সঙ্গে রয়েছি । 


ইরানকে নিয়ে প্রেসিডেন্টের বিরুপ সমালোচনা করেন মিট রমনি । ইরানের পারমানবিক কর্মসূচীকে তিনি যুক্তরাষ্ট্রের সবচেয়ে বড়ো আশংকার হেতু রূপে উল্লেখ করেন ।
জবাবে , ইরানের বিরূদ্ধে তাঁর প্রশাসন যে কঠোর সব বিধিনিষেধ আরোপ করেছে , তার উল্লেখ করলেন ডেমোক্র্যাটিক প্রার্থী গদ্দীনশিন প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা । 
পাকিস্তানের উল্লেখে মি:ওবামা ২ হাজার একের সন্ত্রাসী হামলার মূল হোতা ওসামা বিন লাদেনের পিছূ ধাওয়া করতে পরিচালিত বিশেষ অভিযানের কথা বলেন । বললেন – অনুমতি চেয়ে ওটা করতে গেলে ঐ সন্ত্রাসীর কাছে হয়তো পৌঁছোনোই যেতো না । 

পাঠকের মন্তব্য