তীব্র উৎকণ্ঠার মধ্যে মেডিকেল পরীক্ষা, প্রশ্ন ফাঁসের কারণে গ্রেফতার ২০
১ অক্টোবর, ২০১১ ১:২২ পূর্বাহ্ণ
-

প্রশ্ন ফাঁসের গুজবের কারণে তীব্র উৎকণ্ঠার মধ্যে মেডিকেল ও ডেন্টাল কলেজে এমবিবিএস এবং বিডিএস কোর্সের ভর্তি পরীক্ষা গতকাল শুক্রবার অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার গভীর রাত থেকে করা হয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, চিকিৎসক, ব্যাংক কর্মকর্তা, মেডিকেল শিক্ষার্থীসহ কমপক্ষে ২০ জনকে।

শুক্রবার সকালে স্বাস্থ্য অধিদফতরে প্রকৃত প্রশ্নের সঙ্গে উদ্ধারকৃত প্রশ্নের মিল না পেয়ে যথাসময়ে পরীক্ষা চালিয়ে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেন অধিদফতরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. সিফায়েত উল্লাহ। পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শন শেষে স্বাস্থ্যমন্ত্রী অধ্যাপক ডা. আ ফ ম রুহুল হক প্রশ্ন ফাঁস সংক্রান্ত গুঞ্জন সরাসরি নাকচ করে দেন।

গতকাল বিকেলে র‌্যাব-২ কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে প্রশ্ন কেনাবেচা বিষয়ক চাঞ্চল্যকর সব তথ্য তুলে ধরেন র‌্যাব কর্মকর্তারা। তারা জানান, প্রতারণামূলকভাবে ভুয়া প্রশ্ন ছেপে তা বিক্রি করে মোটা টাকা হাতিয়ে নেওয়ার ফাঁদ পেতেছিল সংঘবদ্ধ চক্র। সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাব বলেন, জিজ্ঞাসাবাদে আমরা জানতে পেরেছি প্রতারক চক্র প্রতি পরীক্ষার্থীর কাছে ১০ লাখ টাকা চুক্তিতে প্রশ্নপত্র সরবরাহ করে। এর মধ্যে ২ লাখ টাকা অগ্রিম দিতে হয়। জমা রাখতে হয় পরীক্ষার্থীর মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার মূল সনদপত্র। পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হলে বাকি ৮ লাখ টাকা জমা দিয়ে সনদ ফেরত নেওয়ার শর্ত দেওয়া হয়।গভীর রাত থেকে শুক্রবার ভোর পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে আটক ২০ জনের কাছ থেকে বেশকিছু ভুয়া প্রশ্নপত্র, ২৯টি মোবাইল সেট, তিনটি মোটরসাইকেল ও ৮ লাখ ২৬ হাজার টাকা উদ্ধার করে। গ্রেফতারকৃতরা হলেন_ জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের সরকার ও রাজনীতি বিভাগের শিক্ষক ফিরোজুল হাসান, ঢাকা ডেন্টাল কলেজের ইন্টার্নি চিকিৎসক মঞ্জুর আলম, অগ্রণী ব্যাংকের কর্মকর্তা জুয়েল আহমেদ, গ্রামীণ ব্যাংকের কর্মকর্তা আশরাফুল আলম, রাজস্ব বোর্ডের কর্মকর্তা মানস দেব, বনশ্রীর প্রগ্রেসিভ ইনস্টিটিউটের শিক্ষক আনিছুল ইসলাম, শিক্ষক আমিনুল ইসলাম, ঢাকা মেডিকেল কলেজের ছাত্র শহিদুজ্জামান ওরফে শাহেদ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র এমিল, শেয়ার ব্যবসায়ী ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা তারিকুল ইসলাম, জসীম উদ্দিন, নুরুন্নবী তেজ, তানভীর আহমেদ ওরফে সিদ্দিক, শহীদুল ইসলাম ওরফে সুজন, তৌহিদুল ইসলাম, মোতাহার হোসেন, হাবীবুর রহমান, মোহাম্মদ লিয়ন, নাজমুল পারভেজ ও তৌহিদুল ইসলাম রাজু। তাদের মধ্যে ছয়জনকে বৃহস্পতিবার রাতে গ্রেফতারের খবর গতকালের পত্রিকায় প্রকাশিত হয়।

 

পাঠকের মন্তব্য